স্বেচ্ছায় নিজের শরীরে করোনা নিলেন জার্মান মেয়র!

এখনবাংলা: জার্মান মেয়র নিজের শরীরে স্বেচ্ছায় করোনা ভাইরাস নিবেন বলে কথা দিয়েছেন। অবশেষে মারণ ভাইরাসটি নিজের শরীরে নিয়ে কথা রেখেছেন তিনি। তবে ভাইরাসটি সম্পর্কে যেমন ধারণা করে

এটা শরীরে নিয়েছিলেন বাস্তবে এটা তারচেয়েও অনেক খারাপ। স্টিফান ভন ড্যাসেল (৫৩) নামের ওই মেয়র বলেছেন, কোভিড-১৯ ভাইরাস শরীরে নেওয়ার পর তিনি দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। ভন ড্যাসেল গ্রিন পার্টির

রাজনীতিবিদ এবং বার্লিনের মিট্টি জেলার মেয়র। তিনি বলেছেন, ‘মনে হয় আমি এখন ঠিক আছি, তবে দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলাম। আমার চিন্তাভাবনার চেয়েও এটা অনেক দীর্ঘ সময় ছিল। ভাইরাসটি খুবই খারাপ।’

মেয়র বলেন, ‘আমি নিজেকে ইচ্ছাকৃতভাবে সংক্রমিত করেছিলাম। নিজেকে আনন্দিত করার জন্য এটা করেছিলাম। আমি ভেবেছিলাম এটা হয়তো তিন দিনের মতো শরীরে থাকবে, তারপর সুস্থ্য হয়ে উঠবো। তবে এটা

আমার ধারণার চেয়ে দীর্ঘদিন আমাকে ভুগিয়েছে। এই সময়টা আমি সেলফ কোয়ারেন্টিনে ছিলাম। যাতে অন্যকেউ সংক্রমিত না হয়। নিজের বান্ধবীর মাধ্যমে ভাইরাসটি নিজের শরীরে নিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন মেয়র।

ওই বান্ধবী সুইজারল্যান্ডে ভ্রমণের সময় করোনায় আক্রান্ত হন।নিজের শরীরে স্বেচ্ছায় করোনা ভাইরাস নিবেন বলে কথা দিয়েছেন একজন জার্মান মেয়র। অবশেষে মারণ ভাইরাসটি নিজের শরীরে নিয়ে কথা রেখেছেন তিনি।

তবে ভাইরাসটি সম্পর্কে যেমন ধারণা করে এটা শরীরে নিয়েছিলেন বাস্তবে এটা তারচেয়েও অনেক খারাপ। স্টিফান ভন ড্যাসেল (৫৩) নামের ওই মেয়র বলেছেন, কোভিড-১৯ ভাইরাস শরীরে নেওয়ার পর তিনি দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ।

ভন ড্যাসেল গ্রিন পার্টির রাজনীতিবিদ এবং বার্লিনের মিট্টি জেলার মেয়র। তিনি বলেছেন, ‘মনে হয় আমি এখন ঠিক আছি, তবে দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলাম। আমার চিন্তাভাবনার চেয়েও এটা অনেক দীর্ঘ সময় ছিল।

ভাইরাসটি খুবই খারাপ।’ মেয়র বলেন, ‘আমি নিজেকে ইচ্ছাকৃতভাবে সংক্রমিত করেছিলাম। নিজেকে আনন্দিত করার জন্য এটা করেছিলাম। আমি ভেবেছিলাম এটা হয়তো তিন দিনের মতো শরীরে থাকবে, তারপর সুস্থ্য হয়ে উঠবো। তবে এটা আমার ধারণার চেয়ে দীর্ঘদিন আমাকে ভুগিয়েছে।

ফেসবুকে আমরা