Breaking News :

সৌদি যুব’রাজের ‘ক্ষো’ভ’ থেকেই ইমরান খানের প্লে’নে ‘গোলযোগ’?

এখনবাংলা: সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের দেয়া বিশেষ বিমানে করেই গত মাসে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেখানে যাও’য়ার পর সৌদি যুবরাজকে এড়িয়ে

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান ও মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গে একটি ইসলামিক ব্লক গঠনের চিন্তা থেকে আলাদা বৈঠক করেন। ইমরান খানের এই বৈঠক সহজভাবে নিতে না পেরে

ইসলামাবাদে ফেরার জন্য পাক প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া নিজের বিশেষ বিমান মাঝপথ থেকে নিউইয়র্কে ফিরে আসার নির্দেশ দেন যুবরাজ বিন সালমান। সেই সময় পাক প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিয়েছে

বলে জানানো হয়েছিল। পাকিস্তানি ম্যাগাজিন ফ্রাইডে টাইমস এক প্রতিবেদনে এমন চাঞ্চল্যকর দাবি করেছে। সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন ফ্রাইডে টাইমস তাদের ৪ অক্টোবর প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দাবি করেছে, নিউইয়র্কে

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কিছু কূটনৈতিক তৎপরতা-তথা কর্মকাণ্ডে সৌদি যুবরাজ খুশি হতে পারেননি। সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের ফাঁকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান, মালয়েশিয়ার

প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সঙ্গে বিশ্বের নিপীড়িত মুসলিমদের জন্য নেতৃত্বশীল একটি ব্লক তৈরির ব্যাপারে বৈঠক করেন তিনি। এমনকি ইরানি কর্তৃপক্ষের সঙ্গেও কথা বলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ইমরান, মাহাথির ও এরদোয়ানের ওই বৈঠকে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির আদলে একটি ইংরেজি ভাষার টেলিভিশন চ্যানেল চালুর সিদ্ধান্ত নেন।

এই চ্যানেলের উদ্দেশ্য হবে মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন সঙ্কট ও তার সমাধানের উপায় এবং ইসলামোফোবিয়ার (ইসলামভীতি) বিরুদ্ধে লড়াই করা। উল্লেখ্য, নিউইয়র্কে থাকতেই ইমরান খান ঘোষণা দেন, তিনি মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা কমিয়ে আনতে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করছেন।